দৈনিক গৌড় বাংলা

বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি, রাত ২:১৮

শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও অতিথিদের অংশগ্রহণে প্রভাতফেরিতে ‘ইংরেন বয়হাওয়া, মে অক্তে রাংগোয়া ইকুশ না: ফেব্রুয়ারি, ইংকি আত হিরিং ইং’…. অর্থাৎ ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি…..’ কোল ও বাংলা ভাষায় একুশের গানটি গেয়ে প্রভাতফেরি, নিজেদের বানানো শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে বুধবার বাবুডাইং আলোর পাঠশালায় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি গ্রামবাসী ও বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত অতিথিবৃন্দ অংশ নেন।
দিবসটি উপলক্ষে গত সাত দিন আগে থেকেই শিক্ষার্থীরা প্রস্তুতি নেন। দূর থেকে মাটি সংগ্রহ করে নিয়ে এসে মাটির বেদী তৈরি করা হয়। এরপর বাঁশ দিয়ে শহীদ মিনারের কাঠামো তৈরি করা হয়। মনের মাধুরী মিশিয়ে শিক্ষার্থীরা বেদীতে আলপনা আঁকেন। এছাড়া বিদ্যালয়ের মাটির দেয়ালও লেপে-পুছে ঝকঝকে করে তাতে আলপনা আঁকেন তারা। শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়ার জন্য বিদ্যালয়েই তৈরি করেন ফুলের ডালা।
একুশের দিন সকাল হতেই একে একে শিক্ষার্থীরা হাতে হাতে বিভিন্ন ফুল নিয়ে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এসে উপস্থিত হন। শিক্ষার্থীদের সাথে আসেন অভিভাবকও। সকলে হাতে হাতে ফুল নিয়ে সকাল সাড়ে নয়টায় শুরু হয় প্রভাতফেরি। প্রভাতফেরি শেষে শহীদ মিনারে দেয়া হয় শ্রদ্ধাঞ্জলি। ফুল দেন অভিভাবক ও অতিথিরাও। এসময় কোল সম্প্রদায়ের নারীরা ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান জানাতে প্রণাম করেন।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহসভাপতি কার্তিক টুডু, সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সুজারুদ্দিন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক আনোয়ার হোসেন, আইনজীবী ও সমাজসেবী আবু হাসিব, বাবুডাইং আদিবাসী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক কানাই চন্দ্র দাস, অভিভাবক রুমালি হাসদা, সফল ফলচাষি মতিউর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জে উদীচীর সাধারণ সম্পাদক আমিরুল মোমেনিন, বিনামূল্যে রক্তদানকারী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন লাল বর্ণের প্রতিষ্ঠাতা রকিবুল হাসান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী উজ্জামান নূর।

About The Author